সব দেশ থেকে বাংলাদেশে যাত্রী প্রবেশ বন্ধ

জাতীয় শীর্ষ খবর

আজ রোববার মধ্যরাত থেকে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত ইংল্যান্ড বাদে ইউরোপের সব দেশ থেকে বাংলাদেশে যাত্রী প্রবেশ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গতকাল শনিবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।
এর আগে ঐ একই সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক নিশ্চিত করেন যে বাংলাদেশে আরো দু’জন নতুন ব্যক্তির মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তবে কোথায় বা কারা শনাক্ত হয়েছেন তা বলা হয়নি। শুধু জানানো হয়েছে, এরা দুজনই বিদেশ থেকে এসেছেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ভারত, সৌদি আরবের মতো অনেক দেশই তাদের দেশে বিদেশ থেকে যাত্রী প্রবেশ স্থগিত করেছে।” “ইংল্যান্ড বাদে ইউরোপের সব দেশ এবং যেসব দেশে করোনভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অস্বাভাবিকভাবে বেশি সেসকল দেশ থেকে সব যাত্রী বাংলাদেশে আসা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।” তিনি বলেন, “বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখন ইউরোপকে করোনাভাইরাসের এপিসেন্টার হিসেবে চিহ্নিত করায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।”
তবে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অস্বাভাবিক বেশি থাকার কারণে ইউরোপের বাইরে অন্যান্য মহাদেশের কোনো নির্দিষ্ট দেশকে চিহ্নিত করা হয়েছে কিনা, সেবিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি পররাষ্ট্র মন্ত্রী।
কিন্তু সেসব দেশ থেকে আসা বিদেশি যাত্রীর পাশাপাশি বাংলাদেশি নাগরিকদেরও ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতেই হবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আজ রোববার রাত থেকে শুরু করে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত পর্যবেক্ষণের পর এবিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানান পররাষ্টমন্ত্রী আব্দুল মোমেন।
এছাড়া যেসব দেশ বাংলাদেশি নাগরিকদের বাংলাদেশ থেকে তাদের দেশে যাওয়া বাতিল করেছে, সেসব দেশের নাগরিকদেরও বাংলাদেশে প্রবেশ স্বল্পকালীন সময়ের জন্য স্থগিত করা হবে বলে জানান তিনি।
পররাষ্টমন্ত্রী আরো বলেন, “আমার অনেকগুলো দেশকে অন অ্যারাইভাল ভিসা দিয়ে থাকি। আগামী দ্ ুসপ্তাহের জন্য সেসব দেশের অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা স্থগিত করা হবে।” এসব সিদ্ধান্ত এরই মধ্যে দূতাবাসগুলোকে জানানো হয়েছে এবং এর বাস্তবায়নের স্বার্থে নীতিমালা নির্ধারণ করার কাজ চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *