লেখক বেলাল চৌধুরী‘র ‘হৃদয়ে আমার মক্কা-মদিনা’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান

শীর্ষ খবর সাহিত্য সিলেট

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ভাষাসৈনিক অধ্যক্ষ মাসউদ খান বলেছেন, লেখককে নিজের জ্ঞান শক্তি লেখনির মাধ্যমে কাজে লাগিয়ে সমাজ এবং রাষ্ট্রের সকলকে সচেতন করে তুলতে হবে। লেখার পূর্বশর্ত হচ্ছে আবেগ, অনুভূতি, চিন্তা, চেতনা, সৃজনশীল মনোভাব থাকা, যার মাধ্যমে একজন লেখকের মনের ভাব প্রকাশ পায়। লেখক তার চিন্তা থেকে ধর্মীয় মনোবল নিয়ে অন্তরের চক্ষু দিয়ে জানা অজানা অনেক তথ্য তুলে ধরেন। যার মাধ্যমে ইতিহাসের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা জানা এবং শেখা যায়।
পান্ডুলিপি প্রকাশন সিলেট-এর উদ্যোগে বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক বেলাল আহমদ চৌধুরী‘র পঞ্চম গ্রন্থ ‘হৃদয়ে আমার মক্কা-মদিনা’-এর প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
গতকাল শনিবার সন্ধায় সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ সাহিত্য হলে ‘হৃদয়ে আমার মক্কা-মদিনা’-এর গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট রম্যলেখক ও বাংলাদেশ ডাক বিভাগের সাবেক মহাপরিচালক আতাউর রহমান ও লেখক অনুভূতি ব্যক্ত করেন গ্রন্থের লেখক বেলাল আহমদ চৌধুরী।

কেমুসাসের সহ-সভাপতি মুহম্মদ বশিরুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন, শামসীর হারুনুর রশীদ, স্বাগত বক্তব্য রাখেন পান্ডুলিপি প্রকাশন‘র প্রকাশক বায়েজীদ মাহমুদ ফয়সল। সিলেট এক্সপ্রেসের স্টাফ রিপোর্টার তাসলিমা খানম বীথির পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দৈনিক উত্তরপূর্বের প্রধান সম্পাদক আজিজ আহমদ সেলিম, এসএমপি‘র উপ-পুলিশ কমিশনার ট্রাফিক ফয়সল মাহমুদ, সাংবাদিক ও কলামিস্ট লেখক আফতাব চৌধুরী, শাবি‘র প্রাক্তন রেজিস্ট্রার জামিল আহমদ চৌধুরী, শিক্ষাবিদ লেখক প্রফেসর আজিজুর রহমান লস্কর, শিক্ষাবিদ কবি লে.কর্ণেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ, কেমুসাসের সহ-সভাপতি সেলিম আউয়াল, গবেষক শাহ্ নজরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শাবির অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার লেখক সৈয়দ সলিম, মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম, সাংবাদিক আবু তালেব মুরাদ, রাজনীতিবিদ ও কবি সালেহ আহমদ খসরু, লেখক মো.আব্দুর রহিম, মাওলানা মুহাম্মদ সগীর। কারী মো.ফরহাদ হোসেনের পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যামে শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শাবি‘র সহকারী অধ্যাপক লেখক পুত্র ড.মুহাম্মদ আশরাফুল ফেরদৌস চৌধুরী।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে আতাউর রহমান বলেন, বর্তমান প্রজন্মের ধর্মীয় মূল্যবোধ ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। ফলে ইসলামের ইতিহাস সম্পর্কে অনেকের সুস্পষ্ট ধারণা নেই। তাদেরকে লেখনির মাধ্যমে ধর্মীয় জ্ঞান বৃদ্ধি করতে হবে। বেলাল আহমদ চৌধুরীর এ গ্রন্থের মাধ্যমে যুব সমাজ ইসলামের ইতিহাস জানতে পারবে।

আজিজ আহমদ সেলিম বলেন, আমাদের ধর্মীয় মূল্যবোধ ক্রমশই কমে আসছে। ফলে সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। এ সমাজ ব্যবস্থাকে ধরে রাখতে আমাদের ভেতর আখলাক স্থাপন করতে হবে।
ফয়সল মাহমুদ বলেন, বেলাল আহমদ চৌধুরী অত্যন্ত সমাজ সচেতন লেখক। তার লেখার মাধ্যমে সমাজের নানা বিষয় ফুটে ওঠে। সবাই যদি এই বই সংগ্রহ করি এবং পড়ে জ্ঞান লাভ করি তাহলে এটা ইবাদতের সামিল হবে।
জামিল আহমদ চৌধুরী, বর্তমান যুব সমাজের একটি বড়ো অংশ নানা অপকর্মে লিপ্ত হচ্ছে। তাদেরকে ধর্মীয় আচার-আচরণ এবং দিক নির্দেশনার মাধ্যমে ইসলামের সঠিক পথে নিয়ে আসতে হবে।

আফতাব চৌধুরী বলেন, বেলাল আহমদ তার চিন্তা, চেতনা, সৃজনশীল মনোভাব নিয়ে মক্কা-মদিনার অনেক জানা-অজানা বিষয় তুলে ধরেছেন। এই বই পড়ার মাধ্যমে জ্ঞান সমৃদ্ধ হবে এবং ইসলামের ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি আরো সুদৃঢ় হবে।
আজিজুর রহমান লস্কর বলেন, আমরা ধর্মীয় এবং আধ্যাত্মিক দিক থেকে মক্কা-মদিনাকে মনের ভেতর লালন করি। লেখক তার ভ্রমণের অভিজ্ঞতা আমাদের মধ্যে শেয়ার করায় তা আমাদের ব্যক্তি জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
লেখক অনুভূতি ব্যক্ত করে বেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, সবাই শান্তির ধর্ম ইসলামকে ভালোবেসে অন্তরের অন্তঃস্থলে আগলে রাখতে হবে। মহাগ্রন্থ আল-কোরআন পাঠের মাধ্যমে আমরা ব্যক্তি জীবনে অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকতে পারবো। আমাদের যুব সমাজকে অন্যায় এবং অসৎ-কাজ থেকে ফিরিয়ে আনতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *