নেপাল সরকারকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার রফতানি করবে বাংলাদেশ

নেপাল সরকারকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার রফতানি করবে বাংলাদেশ। নেপালের জনগণের প্রয়োজনীয়তা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সহযোগিতার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন বলে জানিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) ও নেপালের কেএসসিএলের (Krishi Samagri Company Limited-KSCL) মাঝে এ নিয়ে একটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

বিসিআইসি’র চেয়ারম্যান আমিন উল আহসান এবং কেএসসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নেত্রা বাহাদুর নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ সময় শিল্প সচিব কে এম আলী আজম ও বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত ডা. বংশীধর মিশ্রসহ শিল্প মন্ত্রণালয়, বিসিআইসি এবং কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেডের (কাফকো) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি ও নেপাল সরকারের কৃষি ও প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে শিল্প সচিব বলেন, নেপালের জনগণের প্রয়োজনীয়তা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সহযোগিতার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন। বাংলাদেশ নিজস্ব চাহিদা পূরণে সার আমদানি করলেও বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী দেশ নেপালের জরুরি প্রয়োজনে বাংলাদেশ সার রফতানির চুক্তি করে বন্ধুত্বের হাত সম্প্রসারিত করেছে।

বাংলাদেশ নেপালের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয় উল্লেখ করে শিল্প সচিব বলেন, সার সহযোগিতার মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার যে নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে তাতে উভয় দেশ উপকৃত হবে। এ সহযোগিতা ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত ড. বংশীধর মিশ্র তার বক্তব্যে সার সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, এ চুক্তির আওতায় ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার বাংলাদেশ থেকে আমদানি করে নেপাল সরকারকে রফতানি করা হবে। ১ কোটি ২৯ লাখ ১৮ হাজার ৭৫০ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ বাংলাদেশি প্রায় ১০৯ কোটি ৭৪ লাখ ৪৭ হাজার ৮১২ টাকায় নেপাল এই সার ক্রয় করছে। জাগো নিউজ