চার উপজেলায় বন্যা মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি

প্রকৃতি ও পরিবেশ মৌলভী বাজার শীর্ষ খবর

মৌলভীবাজার জেলায় চার উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের আগাম বন্যা মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত বছরের মতো ভয়াবহ অবস্থা যাতে না হয় এ জন্য বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ ৩৮টি (পূর্বের ভাঙা স্থান) স্থান মেরামত করা হয়েছে। এছাড়াও বাঁধের ৩৬টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থান মেরামতের কাজ চলছে। যা এক সপ্তাহের মধ্যে সম্পন্ন হবে।

এছাড়াও মৌলভীবাজার শহরকে রক্ষা জন্য জরুরি-ভিত্তিতে আরসিসি ফ্লাড ওয়াল নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রণেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী। মেরামত ও বিকল্প বাঁধ নির্মাণের স্থানগুলো হলো- মনু নদীর রাজনগর উপজেলার টেংরা ইউনিয়নের কোনাগাঁও (খেয়াঘাট), আদিনাবাদ, উজিরপুর, কান্দিরকুল, মনসুরনগর ইউনিয়নের প্রেমনগর, কামারচাক ইউনিয়নের কালাইকোনা, চাটিকোনাগাঁও, কোনাগাঁও, টুপিরমহল, মিটিপুর, দম্ভিদারেরচক, উত্তরভাগ ইউনিয়নের সিফেজ বন্ধকরণের ৪টি স্থান, কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের মিয়ারপাড়া, সান্দ্রাবাজ, হাজীপুর, চাঁনপুর, আশ্রয়গ্রাম, জামালপুর, দুন্ধালপুর, খন্দকারগ্রাম, হাজীপুর ইউনিয়নের মন্দিরা, উত্তরভাগ, রণচাপ, ইসমাইলপুর, ছৈদলবাজার, পৃথিমপাশা ইউনিয়নের আলীনগর, ধলিয়া, কালিরকোনা, শরীফপুর ইউনিয়নের কালারায়ের চর, লালারচক, ইটারঘাট, মনোহরপুর, নিশিন্তপুর, মৌলভীবাজার সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের উত্তর শ্যামেরকোনা, শ্যামেরকোনা, মাতারকাপন, আখাইলকুড়া ইউনিয়নের মীরপুর, ঢেউপাশা, মমরুজপুর।

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রণেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী বলেন, ‘নদীর পানি বাড়লে ঝুঁকিপূর্ণ ৩৮টি স্থান ভেঙে যেতে পারে। তাই আপদকালীন বরাদ্দ থেকে এই স্থানগুলো মেরামত করা হয়েছে। এছাড়াও মনু নদী প্রবাহিত শহরের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ চাঁদনীঘাট এলাকাটিতে অনুন্নয়ন রাজস্ব বাজেট থেকে জরুরি ভিত্তিতে আরসিসি ফ্লাড ওয়াল নির্মাণ করা হচ্ছে। চলতি মাসের মধ্যেই এ কাজ শেষ হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *